বিয়ের পূর্বে ছেলেদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু টিপস

বিয়ের পূর্বে ছেলেদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু টিপস

বিয়ে নিয়ে প্রত্যেকের নানারকম পরিকল্পনা থাকে। ছেলে হোক কিংবা মেয়ে বিয়ে প্রতিটা মানুষের জন্যই অনেক বড় একটি ব্যপার। তাই এই নিয়ে সবার মাঝেই একটা উত্তেজনা কাজ করে। সবাই ই চায় তার জীবনটা যোগ্য জীবন সঙ্গীর মাধ্যমে অর্থবহ হয়ে উঠুক। আর এজন্য সবার ভেতর ই একটা চিন্তা কাজ করে, তার জীবনসঙ্গী কেমন হবে, তার সাথে মানিয়ে চলতে পারবে কিনা। ছেলেদের ভিতরে যে জিনিসটা লক্ষ্য করা যায় তা হলো বিয়ের পূর্বে বেশিরভাগ ছেলেদের জীবন থাকে অগুছালো। বিয়ের পর অনেক দায়িত্ব এসে কাঁধে ভর করবে এইসব ভেবে অনেক ছেলেই বিয়ে করতে ভয় পায়। যেহেতু বিয়ে প্রত্যেকের করতে হবে আজ হোক বা কাল তাই বিয়ের পূর্বে কিছু জিনিস জানা, মানা এবং পরিবর্তন করা সবার জন্যই জরুরী। আজকে তেমন ই কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করব যা প্রতিটা ছেলেই বিয়ের পূর্বে মেনে চলা উচিত।

মানসিক প্রস্তুতিঃ মানুষিক প্রস্তুতি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যপার বিয়ের পূর্বে। কারণ বিয়ের আগে এবং বিয়ের পর ছেলেদের জীবনে অনেক পরিবর্তন আসে। এই পরিবর্তনটা স্বাভাবিক ভাবে গ্রহণ করতে হবে। তাছাড়া বিয়ের পর একটা ছেলের জীবনের সাথে একটা মেয়ের জীবন ও জড়িয়ে যায় একটা ভালোবাসার বন্ধনে সেখানে দায়িত্ব কর্তব্য যোগ হবে এটাই স্বাভাবিক। আর সবার ই উচিত এটাকে সাদরে গ্রহণ করা।

ছাড় দেয়ার মন মানুষিকতা তৈরী করুনঃ বিয়ের পর এক ছাদের নিচে দুটি মানুষ বসবাস করা খুব সহজ বিষয় নয়। জীবনের নানান প্রতিকূলতা মোকাবিলা করতে হয় এই সময়টায়। এতে আনন্দ, ভালোবাসা, ভালো লাগা যেমন থাকবে তেমনি ঝগড়া কিংবা খারাপ সময় ও আসবে। এটাই প্রকৃতির নিয়ম। আর তাই ঝগড়া ঝাটি যাই হোক দুজন দুজন কে ছাড় দিয়ে নতুন করে শুরু করার মন মানুষিকতা তৈরী করতে হবে। এতে নিজের ই লাভ। সুন্দর দাম্পত্য জীবন কে না চায়?

সঞ্চয় করার অভ্যাস করুনঃ ছেলেরা একটু বেহিসাবী হয় এটা কে না জানে। চায়ের দোকানে বসেও অপ্রয়োজনীয় খরচ মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের ই বেশী হয়ে থাকে। কিন্তু এই অভ্যাস পরিবর্তন করার চেষ্টা কিন্তু বিয়ের পূর্বেই করা উচিত। কেননা বিয়ের পর এই অপ্রয়োজনীয় খরচটাই কিন্তু লাগাতে পারেন আপনার সংসারে কাজে। এতে ব্যক্তি উন্নয়নের পাশাপাশি ভবিষ্যৎ সঞ্চয় ও হয়ে যাবে। সুন্দর ও নিশ্চিত ভবিষ্যৎ এর জন্য ছোট ছোট সঞ্চয় ই কিন্তু অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

বদ অভ্যাস পরিত্যাগ করুনঃ ছেলেদের টুকটাক বদ অভ্যাস থাকবেনা তা কি হয়? রাত জেগে বাসায় ফেরা, ধূমপান করা, অনেক বেলা করে ঘুমানো। এসবের কোনোটাই ভালোনা। তাই বিয়ের পূর্বেই নিজের এসব বদ অভ্যাস গুলো পরিবর্তনের চেষ্টা করুন। হতেই পারে এসব আপনার সঙ্গীর পছন্দ না, সঙ্গীর মন পেতে হলে এসব অভ্যাস তো পরিবর্তন অবশ্যই করতে হবে। এসব অভ্যাস পরিত্যাগ আখেরে নিজের ই সুফল বয়ে আনবে।

অতীতকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যানঃ প্রতিটি মানুষের জীবনেই অতীত থাকে, কারো সুখের কারো বা থাকে বিষাদের। সুখ কিংবা দুঃখ যাই থাকুক না কেন অতীতকে ভুলে গিয়ে সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়ার চেষ্টা ই করতে হবে সবার। নিজের কিংবা নিজের সঙ্গীর অতীত নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি না করে বরং বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কিভাবে সুখী ও সমৃদ্ধ করা যায় সেই চেষ্টাই করুন। আর এটাই সব থেকে জরুরী।

পরিবারকে সময় দিনঃ নিজের কিংবা সঙ্গীনির যার ই হোক না কেন চেষ্টা করুন পরিবারকে সময় দিতে। পরিবার সম্পর্কে যত জানবেন ততই সুন্দর পরিবার নিজেও গড়তে পারবেন। প্রত্যেকটি পরিবারের গল্প হয় ভিন্ন ভিন্ন। তাই একটা মানুষকে ভালোভাবে জানতে হলে তার পরিবার সম্পর্কে জানাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

পরিশেষে নিজে পছন্দ করে বিয়ে করুন কিংবা পরিবারের পছন্দে বিয়ে করুন সুখী দাম্পত্য জীবন পেতে হলে মিলে মিলে সুন্দর একটা সম্পর্ক গড়ে তোলার বিকল্প কিছুই নেই। সঙ্গীর পছন্দ-অপছন্দকে গুরুত্ব দিন এতে দেখবেন জীবনটা অনেক সুন্দর ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

Comments
No comment yet